দাবা খেলা কি হারাম – দাবা খেলা যায়েজ নয় কেন?

দাবা খেলা কি হারাম – দাবা প্রচীন যুগের একটি খেলা। প্রাচীন যুগে সময় কাটানোর জন্য মানুষ প্রচুর পরিমানে দাবা খেলত। যা বর্তমানেও দাবার প্রচলণ ব্যাপক পরিমানে রয়ে গেছে। ইসলামের দৃষ্টিতে দাবা খেলা কি যায়েজ আছে?

প্রিয় পাঠক, অনেকেই জানতে চান সময় কাটানোর জন্য দাবা খেলতে চাই। তবে এটি সম্পর্কে ইসলাম কি বলে। দাবা খেলা কি হারাম এ সম্পর্কে জানাতে আজকের আর্টিকেল আপনাদের জন্য।

Table of Contents

দাবা খেলা কি হারাম

ইসলামের দৃষ্টিতে দাবা খেলার কোনো বৈধতা নেই। বরং নবী করিম (সা) দাবা খেলা কে হারাম বলে অবিহিত করেছেন। যে খেলা গুলো মানুষ কে অলস বানিয়ে দেয় সে গুলোর কোনো বৈধতা ইসলামে নেই।

দাবা ও একটি অলসতার খেলা। এখানে শারিরীক কোনো প্রকার কসরত নেই। এখানে অনেক সময় জুয়ার প্রচলন ও থাকে। অনেকে আবার টাকা দিয়ে ও দাবা খেলে থাকেন এগুলো একেবারেই হারাম।

অনলাইনে দাবা খেলা কি হারাম

অনলাইন হোক অথবা অফলাইন দাবা খেলার জন্য আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমান সময় ব্যয় করতে হয়। এই সময় অপচয় করাটাই হারাম একটা বিষয়। এ ছাড়াও দাবা খেলার কোনো উপকারিতা নেই যার জন্য বৈধতা থাকবে।

তাই অনলাইনে হোক অথবা অফলাইনে যেখানেই হোক দাবা খেলা হারাম

তাস খেলা কি হারাম – বিস্তারিত জানুন

কেরাম খেলা কি হারাম – কেরাম খেলা যাবে কি না?

দাবা খেলা কেন হারাম

অনেকেই বলেন দাবা খেললে নাকি বুদ্ধি বাড়ে তবে এই বুদ্ধির আসলেই কি আপনার কোনো দরকার আছে? মোটেই দরকার নেই এটা শুধু মাত্র দাবা খেলা পর্যন্ত এই সীমাবদ্ধ। দাবা খেলায় প্রচুর পরিমানে সময় ব্যয় করতে হয়।

দাবা খেলায় আসক্তি হওয়ার চান্স থাকে। যেহেতু এগুলো আসক্তিকর খেলা। আসক্তি চলে আসলে প্রচুর পরিমান সময় সে ব্যয় করে ফেলবে যেখানে তার নামাজ, জিকির এর কথা ভুলে যাবে। এ কারনে দাবা খেলা কে হারাম বলা হয়েছে।

দাবা খেলা কি হারাম ভিডিও

আমাদের শেষ কথা – দাবা খেলা কি হারাম

দাবা খেলা কি হারাম– আর্টিকেলে জানালাম যে, দাবা খেলা হারাম। আপনি টাকা অথবা টাকা ছাড়া যেভাবেই খেলেন না কেন সেটা হারাম এই হবে। আল্লাহ আমাদের সহিহ বুঝ দান করুন।

About admin

Check Also

জুমার নামাজের নিয়ত

জুমার নামাজের নিয়ত, নিয়ম ও ফজিলত সম্পর্কে বিস্তারিত

আপনি যদি জুমার নামাজের নিয়ত না জানেন তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য। জুমার নামাজ প্রতি …