সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ – সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস শাখাসমূহ

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ – সুন্দর বন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে সহজেই দূর স্থান থেকে মালা-মাল, কাগজপত্র ইত্যাদি আদান প্রদান করা যায়। সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ অনেক কম হয়ে থাকে।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিভিন্ন জেলা ও দেশ হতেও যে কোনো ধরণের পণ্য ও গুরুত্বপূর্ণ জিনিস গুলো সহজে ও নিরাপদ ভাবেই দেয়া যায় ও আনা যায়। সুন্দর বন কুরিয়ার সার্ভিসে কোনো পন্য যদি পাঠান তাহলে আপনাকে একটি ট্রাকিং নাম্বার ও প্রদান করা হয় যার মাধ্যমে পন্যটি এই মুহুর্তে কোথায় আছে সেটা সম্পর্কে ও জানা যায়।

আপনার পাঠানো পন্যটি কতদিনের মধ্যে পৌছবে ইত্যাদি বিস্তারিত ধারণা ও পাওয়া যায়। অনেক সময়েই আমাদের লোকেসনে যেতে পণ্য টি হস্তান্তর করার মত কোনো উপায় থাকেনা। ঠিক সেই মুহুর্তে আপনি চাইলেই সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ব্যবহার করতে পারেন।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ নির্ভর করে পণ্যের ওজনলোকেসন এর উপর ভিত্তি করে। যদি দেশের মধ্যে আপনি কিছু পাঠাতে চান তাহলে খরচ কম পরবে। দেশের মধ্যে সুন্দরবন এসএ পরিবহন সেবা দিয়ে থাকে। সর্বোচ্চ ৭২ ঘন্টার মধ্যে পণ্য ডেলিভারি দিতে সক্ষম হয়।

আবার যদি বাহিরের কোনো দেশে কিছু পাঠান তাহলে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ এর পরিমান বাড়বে। বাহিরের ক্ষেত্রেও আপনি কোন দেশে পাঠাবেন সেটার উপর নির্ভর করে। আপনি ভারতে যে খরচে পাঠাতে পারবেন সেই একই খরচে সৌদি কিংবা ইউরোপ এর কোনো দেশে পাঠাতে পারবেন না। এজন্য নিচ থেকে দেখে নিন দেশ ও দেশের বাহিরের সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ সমূহ এর তালিকা-

বাংলাদেশের মধ্যে কুরিয়ার সার্ভি খরচ- পণ্যের ওজনের উপর প্রতি কেজি ১০ টাকা করে খরচ দিতে হবে। দেশের মধ্যে যে কোনো জেলার শাখায় ৭২ ঘন্টার মধ্যে ডেলিভারি প্রদান করে। পণ্য প্যাকেজিং এর জন্য কার্টুন এর জন্য আলাদা খরচ গুনতে হবে। ছোট কার্টুন এর জন্য ৩০ টাকা ও বড় কার্টুন এর জন্য ৮০ টাকা দিতে হবে। এর পরেও বারতি প্যাকেজিং এর জন্য বাড়তি খরচ দিতে হবে।

দেশের বাহিরে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ

দেশের বাহিরে প্রায় ১৫৫ টি দেশে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পন্য আদান প্রদান করা যায়। নিচে ০৪ টি দেশের সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ লিস্ট দিলাম-

বাহিরে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ
স্থান পণ্যের ওজন ওজন প্রতি খরচ ডেলিভারি সময়
 পাকিস্তান  ১ কেজি  ১৮০০ টাকা  ৭২ ঘন্টা
 ভারত  ১ কেজি  ৫০০ টাকা  ৪৮ ঘন্টা
 সৌদি আরব  ১ কেজি  ২০০০ টাকা  ৭২ ঘন্টা
 আমেরিকা  ১ কেজি  ২৮০০ টাকা  ৭২ ঘন্টা

সুন্দরবন কুরিয়ার কি কি আদান-প্রদান করা যায়

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে অনেক কিছু আনা নেয়া করা যায়। নিচে দেখুন কি কি পণ্য সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পাঠাতে পারবেন-

  • দলিল
  • সার্টিফিকেট
  • চিঠিপত্র
  • সংবাদপত্র
  • মোবাইল
  • কম্পিটার
  • ইলেক্ট্রনিক জিনিস
  • বই
  • কাপড়

এ ছাড়াও বেশ কিছু জিনিস পাঠাতে পারবেন এজন্য আপনাকে কুরিয়ার সার্ভিস শাখায় ফোন করে তথ্য নিতে পারেন। সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে টাকা আদান প্রদান করা গেলেও বাংলাদেশ সরকার থেকে এটা গৃহিত না। তাই টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে যদি টাকা হারিয়ে যায় সেক্ষেত্রে কোনো অভিযোগ গ্রহন করা হয়না।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

১। কোনো প্রকার অবৈধ পণ্য সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস গ্রহন করে না।
২। কোনো পণ্যের ক্ষেত্রে যদি স্পেসাল ভাবে প্যাকেজিং এর প্রয়োজন পরে আপনি করতে পারবেন।
৩। পন্য সময়মতো না পৌছালে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া যায়।
৪। কোনো পন্য যদি না আসে তবে সার্ভিস শাখায় অভিযোগ জানানো যায়।
৫। হারিয়ে যাওয়া পণ্যের সমপরিমান অর্থের ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ডেলিভারির সময়

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসে দেশের মধ্যে খুব অল্প সময়ে ডেলিভারি দিয়ে থাকে। সর্বোচ্চ গেলে ৭২ ঘন্টা সময় লাগে। পণ্য পৌছে গেলে যাকে পাঠানো হয়েছে তার ফোনে বার্তাকল করা হয়।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের শাখা সমূহ

বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের শাখা রয়েছে। বিভাগ এর জেলা ও উপজেলায় ১/২ টি করেও শাখা রয়েছে। আপনার নির্ধারিত কাছের শাখাটি বন্ধ আছে কি না জানার জন্য ফোন নাম্বারে ফোন করে প্রয়োজনীয় তথ্য নিতে হবে। নিচের ছবিতে দেখে নিন সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের সকল শাখার ঠিকানা ও ফোন নাম্বার-

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ
সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ

ফ্রিজ, মোবাইল সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ

ফ্রিজ ও অন্যন্য ভারি জিনিসের ক্ষেত্রে ৫০ টাকা কেজি অনুযায়ী খরচ হবে। মোবাইলের ক্ষেত্রে ২৫০ টাকা খরচ হবে। যেহেতু পণ্যের ধরণ অনুযায়ী খরচ নির্ভর করে তাই নিকটস্থ কুরিয়ার থেকে খরচ সম্পর্কে তথ্য নিবেন।

আরো পড়ুন- বিজয় কিবোর্ড বাংলা লেখার নিয়ম – পিডিএফ সহ

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ট্রাকিং

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে আপনারা সহজেই পাঠানো পণ্যটি কোথায় আছে বর্তমানে সেটা দেখতে পারবেন। এর জন্য ট্রাকিং বি নাম্বার দিয়ে করতে হবে।

কুরিয়ার সার্ভিস থেকে পণ্য পাঠানোর পর একটি ভাউচার দেয়া হয় যেখানে CN নাম্বার থাকে। এই CN নাম্বার দিয়ে পার্সেল ট্রাকিং করতে পারবেন।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ট্র্যাকিং করার নিয়ম

সুন্দরবন পার্সের ট্রাকিং এর জন্য আগে CN নাম্বার সংগ্রহ করুন এর পর নিচের মত কাজ করুন-

  • প্রথমে সুন্দরবন ট্রাকিং এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে।অফিসিয়াল সাইটে যেতে এখানে ক্লিক করুন।
  • সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ
    সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ
  • সাইটে ঢোকার পর CN নাম্বার টি লেখার একটি বক্স পাবেন সেখানে নাম্বার টি লিখুন।
  • এরপরে “search” অপশনে ক্লিক করুন

এবার আপনার সুন্দরবন এ পাঠানো পণ্যের সকল তথ্য পেয়ে যাবেন। বর্তমানে কোথায় এটি আছে সে তথ্য ও। এভাবেই সহজেই আপনারা সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ট্র্যাকিং করতে পারবেন।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস প্রধান কার্যালয়

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা-

স্থান– মতিঝিল, এবি ব্যাংকের ১৫০ গজ সামনে এগিয়ে।
ঠিকানা– ২৪-২৫, দিলকুশা, ঢাকা-১০০০
ফোন নাম্বার–  +৮৮-০২- ৯৫৫৯৬৩৫, ৯৫৫১৯৮৪, ৯৫৫১৬৫৬, ৯৫৬৪২১৮
ফ্যাক্স নাম্বার– ৮৮-০২-৯৫৬৩৯৯৫
ই-মেইল– scsl@citecho.net
ওয়েবসাইট-https://www.sundarbancourierltd.com/

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস হেল্পলাইন নাম্বার

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের নাম্বারে সাহায্য পাবেন যে কোনো ধরণের। হেল্পলাইন নাম্বারটি হলো- +৮৮-০২- ৯৫৫৯৬৩৫, ৯৫৫১৯৮৪, ৯৫৫১৬৫৬, ৯৫৬৪২১৮

আমাদের শেষ কথা

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস খরচ আর্টিকেলে আপনাদের সামনে সুন্দরবন সম্পর্কে অনেক তথ্য তুলে ধরলাম। সুন্দরবন এর খরচ সবসময় এক থাকতে নাও পারে। তাই আপনার আসে পাশে যে শাখা টি রয়েছে সেখানে ফোন দিয়ে বিস্তারিত জেনে নিবেন। ধন্যবাদ সকল কে।

আরো পড়ুন- 

About admin

Check Also

অনলাইনে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন যাচাই করার নিয়ম | কাবিন নামা অনলাইন চেক

অনলাইনে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন যাচাই করার নিয়ম | কাবিন নামা অনলাইন চেক

অনলাইনে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন যাচাই করার নিয়ম নিয়ে অনেকের মধ্যে কৌতূহলের শেষ নেই। কারণ সবাই এখন …